Wednesday, February 21, 2024
উপন্যাস

কৌস্তূভ

17 thoughts on “কৌস্তূভ

  • ত্রিজিৎ কর

    জাস্ট অসাধারণ…শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত মনে হলো ঠিক যেন কোনো হলিউড সাইফাই সিনেমা দেখছি!!! বাংলাতেও এমন লেখা সম্ভব!!! বিশেষত action scene গুলোর বর্ণনা ভীষণ সাবলীল যা আদতে একটা ভীষণ কঠিন কাজ আমার মতে।লেখক আর কল্পবিশ্ব দুজনকেই কুর্নিশ!!!
    *পুনশ্চ এর সিকুয়েলের অপেক্ষায় রইলাম কিন্তু😋😋😋

    Reply
  • সুদীপ দেব

    অসাধারণ! রুদ্ধশ্বাস পাঠের পরে এখন আমি বাকরুদ্ধ! অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করে থাকব এর পরবর্তী অংশের, যার হিন্টস দেওয়া আছে শেষের কয়েকটি প্যারাগ্রাফে। সুমিতদা, কুর্ণিশ!

    Reply
  • নির্জন সেন

    “ফুল ফোটে? তাই বলো, আমি ভাবি পটকা…”

    আজ্ঞে না, পটকা নয়, কল্পবিশ্বের পাতায় স্রেফ একখানা ভূমিকম্প বোমার মতই ফেটে পড়েছেন সুমিত বর্ধন মহাশয়। একথা নিঃসন্দেহে বলা চলে যে বর্ধনদের শিরস্ত্রাণে একটা নতুন উজ্জ্বল পালক যোগ হল। ওঁর লেখা পড়ে আমি অভিভূত, আপ্লুত। আমার পড়াশোনার পরিধি খুবই কম, তাই কেউ দোষ ধরবেন না, তবু বলি প্রেমেন্দ্র মিত্রের “পাতালে পাঁচ বছর”-এর পর এত ভালো, জমজমাট কল্প-উপন্যাস যে কেউ লিখবেন, আর আমার জীবনকালে সে লেখা আমি পড়ে যেতে পারব, এ আমার প্রত্যাশার বাইরে ছিল। সেজন্যই আমার আনন্দের আতিশয্য বোধহয় কিছুটা বেশি হয়ে যাচ্ছে। নিজেকে সামলাতে পারছি না। আনন্দে নাচতে ইচ্ছা করছে। কোন দিক দিয়ে ওঁর লেখার প্রশংসা করব? হীরের টুকরোর দিকে যেমন যেদিক দিয়েই তাকানো যায় সেদিকেই ঝলকানি দেখা যায় এ লেখাও তেমনি।
    এ লেখার বাঙালিয়ানা মনে পড়িয়েছে হেমেন্দ্রকুমারকে, যদিও তাঁর অধিকাংশ গল্পগুলি ছিল বিদেশী গল্পের অনুবাদ, বিদেশী চরিত্রদের তিনি পরিয়েছিলেন বাঙালির পোষাক, আর এ গল্প একেবারেই মৌলিক।
    এ লেখার সাথে এঁকে দেওয়া দেওয়া সংক্ষিপ্ত ম্যাপ মনে পড়িয়েছে ব্যোমকেশের চিড়িয়াখানাকে, এছাড়া আর কোথাও এমন দৃষ্টান্ত বিশেষ চোখে পড়েনি, এমনকি সত্যজিৎ রায়ের গল্পেও না। এ ধরণের গল্পের সঙ্গে ম্যাপ একটা অপরিহার্য অঙ্গ। তাই বলে একথা ভাবলে ভুল হবে যে তাঁর বর্ণনা অপরিচ্ছন্ন। বস্তুত এত ভালো, প্রাঞ্জল বর্ণনাও আমি বেশি পড়িনি। নদীর জলে ন্যানোটারবাইনের জাল বিছোনোর বর্ণনা পড়ে বুঝতে একটুও অসুবিধা হয়না যে যন্ত্রটা কিভাবে কাজ করে।
    জীবজন্তুদের বর্ণনাও বেশ বিজ্ঞানসম্মত লেগেছে। মনে পড়িয়েছে Into the universe with stephen hawking ডকুমেন্টারিটাকে। মনে পড়েছে এমন অনেক কিছুই, কিন্তু এগুলোর কোনোটা থেকে তিনি টুকেছেন একথা কিছুতেই বলতে পারলাম না।
    সত্যি বলতে কি, গোড়ার দিকে হিমায়ন কক্ষের ধ্বংস হয়ে যাওয়ার কথা পড়ে প্যাসেঞ্জার সিনেমাটার কথা মনে পড়ে যাওয়ায় একটু নাক সিঁটকোনো ভাব ছিল আমার, কিন্তু তারপর কখন যে সিঁটকোনো ভাব চলে গিয়ে প্যালারাম বিশ্বাসের মত মুখখানা হাঁ হয়ে গেছে আর ফোঁসফোঁস করে নিঃশ্বাস ফেলতে আরম্ভ করেছি নিজেই জানতে পারিনি। ভাগ্যিস, বিছানায় শুয়ে শুয়ে এ গল্পখানা পড়েছি, নইলে চাঁদনি মার্কেটে দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে পড়লে নির্ঘাত গাড়িচাপা পড়ে যেতাম।
    শুরুতেই যাঁর এমন আত্মপ্রকাশ তিনি যে আরও অনেক পথ পাড়ি দেবেন এই আশাতেই বুক বেঁধেছি। তবে দিনকাল পাল্টেছে। হেমেন রায়, প্রেমেন মিত্তিরের যুগ গিয়েছে। দু-দুটো বিশ্বযুদ্ধের পর পৃথিবীর এমন অবস্থা দাঁড়িয়েছে যে পেটের ভাত জোগাতেই আজকাল মানুষকে নিজের সবটুকু নিংড়ে দিতে হয়। ঈশ্বরের কাছে প্রার্থনা করি যুগের এই নিষ্পেষণ এই নব্য প্রতিভাকে যেন থামিয়ে দিতে না পারে।

    সবশেষে বলি এর দ্বিতীয় অংশের জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছি। যতদিন না পাচ্ছি ততদিন কল্পবিশ্বের লোকজনদের জ্বালিয়ে মারব কিন্তু। আপনার বাড়ির সামনে অনশনেও বসে যেতে পারি। খুব সাবধান।

    Reply
    • নির্জন সেন

      কল্পবিশ্ব ম্যানেজমেন্ট টিমের উদ্দেশ্যেঃ কমেন্ট করতে গিয়ে কয়েকটা অসুবিধার সম্মুখীন হয়েছি। প্রথমত এতে কমেন্ট লেখার সময় নিজের লেখা কাট-পেস্ট করা যায় না, দ্বিতীয়ত, কমেন্ট করার পর নিজের কমেন্ট আর সেটা এডিট করা যায় না। ফলে ভুল করে কোথাও কোনও বানান ভুল করলে সেটা আর শুধরোনো যায় না।
      যেমন উপরোক্ত কমেন্টে লিখেছি ‘কোনটা থেকে টুকেছেন বলতে পারলাম না।’ ওটা আসলে হবে ‘কোনোটা থেকে টুকেছেন বলতে পারলাম না।’ দুটো বাক্যের অর্থ সম্পূর্ণ আলাদা। পাবলিকের ভুল বোঝার সম্ভাবনা খুব বেশি।

      Reply
      • নির্জন বাবু, কাট-কপি পেস্ট, সচেতন ভাবে সমস্ত সাইটে বন্ধ করা আছে। নইলে বিভিন্ন সময় গল্প গুলি সাইট থেকে চুরি হয়ে যাচ্ছিল। আর কমেন্ট এডিটের জন্যে আপনার কমেন্টের উপরে একটা ‘এডিট দিস’ বলে লিংক আসার কথা, সেখানে ক্লিক করলেই এডিট হবে আশা করি। আমি উপরের কমেন্টটা আপনার হয়ে এডিট করে দিচ্ছি।

        Reply
        • নির্জন সেন

          শ্রদ্ধেয় দীপ ঘোষ মহাশয়,
          আমি html কোডিং-এর কিছুই জানি না। কপি-পেস্ট শুধু কমেন্ট বক্সে active করা সম্ভব নয় বোধহয়, তাই না? অথবা এমনটা কি করা সম্ভব যে কমেন্ট বক্সে শুধু পেস্ট করা যাবে, কপি বন্ধই থাকবে? তাহলে প্রথমে অন্যত্র লিখে নিয়ে এখানে পেস্ট করে দেওয়া যায়।
          অথবা এরকম হয় কি যে শুধু নিজের কমেন্টটুকু কমেন্টবক্সে এডিট করা যাবে, অন্য আর কিছু কপি-পেস্ট বা এডিট কিছু করা যাবে না? বা শুধু অ্যাডমিনরাই করতে পারবেন? সেক্ষেত্রে যিনি কমেন্ট করতে চান তিনি প্রথমে registration করবেন, তারপর log in করে কমেন্ট করবেন? যেমনটা কোনো ফোরামে(যেমন বেঙ্গলি ডাউনলোডে) হয় আর কি।

          আপনারা প্রত্যেকেই ব্যস্ত মানুষ। তাই এইসব আবদার বিরক্তিকর মনে হতে পারে। দয়া করে রাগ করবেন না। আবদার করছি না, কিছু সম্ভাবনার কথা মাথায় এল সেগুলোই লিখলাম মাত্র। আগেই বলেছি আমি আনাড়ি লোক। তাই যতটুকু সম্ভব হয় ততটুকুই করবেন। এমনিতেই আপনারা যা করেছেন এবং করে চলেছেন তা আক্ষরিক অর্থেই তুলনাহীন।

          আমার কমেন্টের উপর ‘এডিট দিস’ বলে কোনো লিংক আসছে না। উপরোক্ত কোনো কিছুই যদি সম্ভব না হয় তবে আপাতত এইটুকু ঠিক করা সম্ভব হলেই অনেক কৃতজ্ঞ থাকব। এতে পেস্ট হচ্ছে না নইলে স্ক্রিনশটের লিঙ্ক পাঠাতুম।

          বিজয়ার শুভকামনা রইল, ভালো থাকুন আর কল্পবিশ্বের আরও আরও শ্রীবৃদ্ধি হোক।

          Reply
          • নির্জন সেন

            পুনশ্চঃ আমার কমেন্ট করার সময়টাও ভুলভাল দেখাচ্ছে।

    • নির্জন সেন

      পরবর্তী অংশে গাছপালার বৈচিত্র্য আরেকটু বেশী আশা করব। এটাতে শুধু থালা গাছ ছাড়া আর তেমন কিছু জানতে পারিনি। আর পতঙ্গগুলোর সাইজও একটু বাড়াবাড়িরকমের ঠেকেছে। যে গ্রহে মাধ্যাকর্ষণ বেশী সে গ্রহে পতঙ্গের আকার আরও ছোট হওয়া উচিত।

      Reply
      • Sumit Bardhan

        আপনার প্রথম অনুযোগটা অস্বীকার করতে পারি না । শব্দ সংখ্যার ওপর রাশ ধরে রাখতে গিয়ে ওয়ার্ল্ড বিল্ডিঙের সময় জীবজগৎ যে ভাবে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে সে তুলনায় উদ্ভিদজগতের দিকে নজর দেওয়া হয় নি । দ্বিতীয়টার উত্তরে বলি পতঙ্গের আকার বাতাসে অক্সিজেনের পার্সেন্টেজ বৃদ্ধির সাথে বৃদ্ধি পায় – উদাহরণ পৃথিবীর কেম্ব্রিয়ান যুগ । অভিকর্ষ বেশি হলে ওড়ার সময়ে ডানার নিচে লিফট বা উচ্চচাপ বেশি পরিমাণে প্রয়োজন হবে, অতএব ডানার সাইজ এবং সেই অনুপাতে পতঙ্গের শরীরের সাইজ বৃদ্ধি পাবে । তবে কৌস্তুভের অভিকর্ষ পৃথিবীর চাইতে ভয়ানক রকমের বেশি নয় । সুতরাং এখানে পতঙ্গের আকারের ব্যাপারে অক্সিজেনের অনুপাত প্রধান নির্ণায়ক হওয়াটা স্বাভাবিক !

        Reply
        • নির্জন সেন

          আর্থার সি.ক্লার্কের কোন একটা বইতে যেন এই নিয়মকানুন গুলো পড়েছিলাম। এখন আর নাম ধাম কিছুই মনে পড়ছে না। খুঁজে পেলে আপনাকে জানাবো। অবিশ্যি উনি লিখেছেন বলেই ঠিক আর আপনি লিখেছেন বলেই ভুল এমন গোঁড়ামিতে আমিও বিশ্বাস করি না।

          Reply
          • Pranabesh Das

            Childhood’s End?

  • Nilachal

    দারুন উপন্যাস।রুদ্ধশ্বাসে শেষ করলাম। এটা একটা সিরিজ হবে বলে মনে হয়।পরের পর্বের অপেক্ষায় রইলাম।

    Reply
  • ত্রিদিবেন্দ্র নারায়ণ চট্টোপাধ্যায়

    দেড় দিনে শেষ করলাম কৌস্তুভ। এ গল্প বাংলা কল্পবিজ্ঞানে একটা মাইলস্টোন হয়ে রইল। এত অনায়াসে এই নতুন জগতটা তৈরি হয়েছে, এত অদ্ভুত জীবজন্তু তৈরি হয়েছে যে এর পেছনের কঠিন পরিশ্রমটা বোঝাই যাচ্ছে না। নতুন পৃথিবীর নতুন খেলার নিয়মগুলিকে খুব নিখুঁতভাবে মানা হয়েছে। একটাও লুজ এন্ড পেলাম না।

    প্রশংসা করার বিশেষণ কম পড়ে যাচ্ছে। এরকম লেখা আরো চাই।

    Reply
  • দুর্দান্ত লেখা..

    Reply
    • AVIJIT ROYMONDOL

      Ses na aro ache?

      Reply
  • Giridhar Maji

    Second part joldi chai Mr. Bardhan. Osadharon lekhar hat aapnar. Onek onek likhun.

    Reply
  • সিম্পলি কাঁপিয়ে দিয়েছেন গুরু!

    Reply

Leave a Reply

Connect with

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!
Verified by MonsterInsights