Wednesday, February 21, 2024
বড় গল্প

ভূষণ্ডী কাগের নক্‌শা

19 thoughts on “ভূষণ্ডী কাগের নক্‌শা

  • গুরুদেব _/|\_ এবার একটা ফুলটুস স্ক্রিপ্ট হয়ে যাক – মুভির জন্যে|

    Reply
  • কী লিখেছেন সুমিতদা! আমি তো পড়তে-পড়তে হুতোমের কালেই চলে গেছিলাম।
    আপনি অতুলনীয়, এবং সর্বার্থে প্রণম্য। আর কিছু বলার নেই।

    Reply
    • অনেক ধন্যবাদ ঋজু ! এই উনবিংশ শতাব্দীর সময়কালটা আমার কিছুটা fascinating লাগে , তাই তার পটভূমিকায় একটা গল্প লেখার
      চেষ্টা করে দেখলাম । ভাল লেগেছে জেনে এ ধরণের লেখার আগ্রহ বেড়ে গেল ।

      Reply
  • Yashodhara Ray Chaudhuri

    মোস্ট ফ্যাসিনেটিং গদ্য ইদানীঙ কালে পড়া। হ্যাঁ হুতোমি বাংলা আমার খুব প্রিয় কিন্তু একটা গল্পের মধ্যে তাকে বুনতে পারার দক্ষতা, আর পদে পদে পাঠককে জড়িয়ে নেওয়া , উফ। জাস্ট হ্যাটস অফ।

    পেজে শেয়ার করেছি। জনে জনে শেয়ার করব।

    Reply
    • অনেক ধন্যবাদ দিদি ! গল্পটা লেখা অবধি ভয়ে ভয়ে ছিলাম কেমন ভাবে সবাই এটাকে নেয় । আপনাদের উৎসাহ পেয়ে কি আনন্দ হচ্ছে বলে বোঝাতে পারব না , মনে হচ্ছে আমার পরিশ্রমটা সত্যিই সার্থক হয়েছে ।

      Reply
  • সুদীপ দেব

    এই ভাষায় এইরকম আঙ্গিকে কল্পবিজ্ঞানের গল্প লেখা যায়!!! এ কী পড়লাম! আমি বাকরুদ্ধ। লেখক আমার কুর্ণিশ জানবেন।

    Reply
  • Soumen Dey

    হুতোমি ভাষায় সেকালের কথা একালে লেখা, তাও আবার কল্পবিজ্ঞান ~ এ বোধহয় শুধু আপনার পক্ষেই সম্ভব সুমিতবাবু। ভূষণ্ডি কাগের নকশায় যেভাবে তুলে ধরেছেন ব্রিটিশ ভারতের কাল্পনিক ইতিহাস, তা সত্যি ভেবে নিতেই মন চাইছে। জুলে ভের্ন এবং এইচ জি ওয়েলসের প্রতি যেভাবে শ্রদ্ধার্ঘ্য জানিয়েছেন তার জন্য আলাদা করে কুর্নিশ। ক্লকওয়ার্কের সাথে রে পাংকের মিশেলে এক অন্যরকম কলগোলামের সৃষ্টিও যুগান্তকারী। বাংলা রেট্রো কল্পবিজ্ঞানের আপনিই গুরুদেব।

    Reply
  • Prasenjit Maulik

    হুতোম এর ভাষায় যে কল্পবিজ্ঞান সম্ভব,এই লেখা পড়ার আগে তা অকল্পনীয় ছিল। অনবদ্য বললেও কম বলা হয়।

    Reply
  • Soumya Sundar Mukherjee

    যে ভাষায় ও যে প্রেক্ষাপটে এই রুদ্ধশ্বাস কাহিনীটি আপনি বুনেছেন, সে জন্য কোনো প্রশংসাই যথেষ্ট নয়। একটিই দুঃখ, বড় দ্রুত শেষ হয়ে গেল।

    আপনার কলমকে কুর্ণিশ, স্যার।

    Reply
  • Tridibendra Narayan Chattopadhyay

    এ একটা নতুন সৃষ্টি, একেবারেই ইউনিক। বাংলা সাহিত্যে এ একটা মাইলস্টোন হয়ে রইল। কল্প-ইতিহাস বলে হয়ত একটা নতুন সাহিত্যের গোত্র তৈরি হল।

    Reply
  • Shanku Goswami

    অসম্ভব সুন্দর। লেখাটা নিজেই একটা টাইম মেশিন

    Reply
  • সন্দীপন গঙ্গোপাধ্যায়

    এই রাত দুকুরে পোড়তে বসে ভাবনাখান এলো যে দেসের বর্ত্তমান পলেটিকশ যখন জেলেপাড়ার সং এর মতো আমোদ দিচ্ছে আর আমরাও চুল বা মনের ফেসানে এলবার্ট বা ওয়েলসি টেরি কেটে আপন খেয়ালে আপনিই মত্তো তখন গপ্পের এমন ব্রাউহামে সওয়ার করিয়ে আমাদের চালান কোর্ল্লেন সেই হুতোমকালে। এখন এই গেসবাতির মায়াঘোরের পর নিজের সোময়ের ডিহি কলকেতার আলো বরো ফেকাসে লেগে যায় কর্ত্তা। সেলাম নেবেন।।

    Reply
  • অনুপম দত্ত

    ওঃ, দাদা একদম দুর্দান্ত। হার্ডকপি মুদ্রিত হলে জানাবেন সংগ্রহে রাখার ইচ্ছে আছে।

    Reply
  • সুমন সেন

    বেশ লাগলো। চালিয়ে যান স্যর। আশা করি এরকম আরো পড়তে পাবো

    Reply
  • সোহম

    লেখাটি নিজেই একটা কালযাত্রীর ডাইরি। মঙ্গলম্যানের কথা না দেখতে পেলে এটাকে দিব্বি হুতুমের দ্বিতীয় অপ্রকাশিত নকশা বলে ছাপা যেত। বর্ধনবাবু যেভাবে প্রত্যাশার পারদ চড়িয়ে যাচ্ছেন ওনার প্রতি সৃষ্টিতে….

    Reply
  • Adrija Banerjee

    মুগ্ধ, বিস্মিত, অভিভূত! ভাবাই যায়না হুতুমের এই অপূর্ব ভাষায় এইরকম একটা দুর্ধর্ষ টানটান গল্প, তাও আবার কল্পবিজ্ঞানের, কেউ লিখতে পারে! সেই যুগের কলকাতা যেন সাদা-কালো-খয়েরী ভিন্টেজ ছবির মত চোখের সামনে ভেসে উঠল। মঙ্গলম্যানদের তো পরিস্কার ভিস্যুয়ালাইজ করতে পারলাম। এত ভালো লেখা, এত ভালো লেখা আরো একাধিকবার পড়তে ইচ্ছা করছে। প্রথমে অর্থতৃষ্ণা, তারপর এই ভূষুন্ডী কাগ – লেখকের কাছে প্রত্যাশা তো ক্রমাগত বেড়েই চলেছে।

    Reply
  • Diganta Bhattacharya

    কিছু লিখবো না।
    লেখার কিছুই নেই।
    আভূমি কুর্ণিশ জানবেন!

    Reply
  • P K Chandra

    হঠাৎই চোখে পড়ল লেখাটি, অতি চমৎকার।

    Reply
  • মৌমিতা চন্দ

    হুতোমি ভাষায় কল্পবিজ্ঞান! অসাধারণ!

    Reply

Leave a Reply

Connect with

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!
Verified by MonsterInsights